মৃত্যুর যন্ত্রনা

মিলি মুখার্জী

মৃত্যু আমাকে হৃদয়
তাড়িত দুর্ভোগে
ফেলেছে আজ আবার ।
সম্পর্কের সন্ত্রাসে
আমি খানখান
হয়ে ভাঙছি ,
কিন্তু এমন তো কথা ছিল না !
বিরুদ্ধতায় নিজেই
নিজের সামনে
শক্ত লড়াই , ঘোষিত বিজেতা আমিই ।
তবুও, হুঁশিয়ারি দিই
হৃদয় কে আজ ।মৃত্যূহীন
স্বপ্ন হয় না , জীবন
তো কঠিন বাস্তব ।

মুখোমুখি অনিকেত

অনিকেত , পর্বতের
আকর্ষন কখনো তোমাকে
অদম্য নেশায় বিপদের দিকে
টেনে নিয়ে গেছে ?
যেমন করে ঠিক তুমি
উৎসব লোভী মানুষদের
টেনে নিয়ে যাও
এক মোহগ্রস্ত ,মৃত্যু উপত্যকায় !
হরিদ্রাভ সুখে, তুমি যখন
ঘুমিয়ে থাক ,তখন পর্বতের
মাথায় ওই মানুষগুলোর
দীর্ঘশ্বাসেরা অতিক্রম করে
দুর্গম পথ ,সাক্ষী থাকে আকাশের তারা
বড় যন্ত্রনায় সক্রেটিসের
যুক্তির ধারা পালটে যায়
ভুল মতবাদে আনিকেত !
নিশ্চিত অধিকারে মানব জীবন ।
শহরে কোনো লাশ ঘর নেই ।
প্রসন্ন প্রেমে সব কটি হৃদয় দোলে
ইচ্ছে হাতের দোলায় ।
রাজাদের যাওয়া-আসা নেই ।
আহা এমন যদি হয় , তুমি জেনো
অনিকেত নিশ্চয় , ঐ সূর্য তোমার
আজ্ঞাবহ হলে আমিও হব তোমার অনুগামী ।

মিলি মুখার্জী

সকাল

     

চিলতে রোদে উঠোন ভাসে
লুকোচুরি গাছের ছায়ায়
ব্যস্ত সময় ভিড় জমালো
শহরতলীর কঠিন মায়ায় ।
ফেরারি রোদ ছায়া ফেলে
আলতো ঘুমের আদুর গায়ে
শিশির ভেজা মাটির উঠোন
সকাল বিছায় ত্রস্ত পায়ে ।
ঝুম শীত আর মিঠে রোদে
ছেলে বেলার গন্ধস্মৃতি
এই ভিটেতে মাখামাখি
বাবার স্নেহ,মায়ের প্রীতি।

মিলি মুখার্জী

বিনির্মাণ


প্রতিমুহূর্তে জীবন কে পাহারা দিই অবক্ষয়ের নাট্যশালায়
এতই সুখ আর মোহ । এই নিদারুণ ক্রান্তিকালে ভাসান জলে
স্বপ্ন ঘন বিনির্মাণে ইতিহাস বদলায় , দিন বদলের মহোতসবে
বিবর্তনের বাঁকে বাঁকে ধ্বংসের চিহ্ন , মনুষ্যত্বের জীবাশ্মের এমন
বিকৃত চিহ্ন সত্যই বিস্ময়ের ।
আঁধারের আস্তিন ঘেঁসে বসে আছি তার সাক্ষাতকার নিতে,
কালের পাতায় লিখতে থাকে কথোপকথনের সারাংশ সহস্র সর্বনাশ !
নির্লিপ্ত পাহারায় কালের তন্দ্রা ভেঙ্গে জেগে ওঠে শংকিত মন
গোলক পৃথিবীর এই বৃত্তের আগল খোলা দ্বার কিন্তু পা জুড়ে
জড়তার শিথিল বিকলাঙ্গতা ।
শতাব্দীর প্রবঞ্চনায় রক্তপিপাসুরা দলে দলে রক্ত শিকারে ছুটছে ,
অবিনাশী অবক্ষয়ে ছেয়ে যায় নগর বন্দর গ্রাম জীবনের আনাচ
কানাচ । আততায়ী পুঁজির গোপন পকেটে শাণিত কৃপা্ণ সময়ের
ক্ষুরধার প্রতারণায় ,কত যুগ ধরে বাস করছি আমার প্রিয় এই
প্রপিতামহের সভ্য নগরে।
সময় বিমুখ এখন মুক্তি প্রয়াসে , কিন্তু বুকের পাঁজরে যে ব্যথা !
যাপিত জীবনের ,জীবাশ্ম কালের ইতিহাস বয়ে বেড়ায় মুখে
মুখে মিথ বুনে যায়। খাঁজকাটা কালের গহবরে সবার অলক্ষ্যে
ম্রিয়মা্ন জীবন ধীর লয়ে ক্ষয়ে ক্ষয়ে যায়। জীবের জীবন দশায়
স্মৃতি রক্ষিতা হয়ে যায় ।

মিলি মুখার্জী

বৃষ্টি


সবাই বলছে আজও নাকি
বৃষ্টি হবে
মেঘ আর মেঘ এত সুখ কি
আমার সবে ?
আকাশ জুড়ে ছোটা-ছুটি
মেঘবালিকার
আকাশ মাঠে বৃষ্টি ফসল
সব একাকার ।
মনের ভিতর মেঘ দাঁড়িয়ে
দস্যি মেয়ে
ঝাঁপিয়ে পরে ছিনিয়ে নিতে
আসছে ধেয়ে ।
রোদের বাড়ি অনেক দূরে
লাগালো ছুট
রোদ তাড়ালো দস্যি মেয়ে
করল যে লুট ।
ঝম ঝমিয়ে বৃষ্টি নামে
মুষল ধারে
অঝোর ধারা নামবে কবে
হৃদয় ভরে ।
বৃষ্টি আসে চলেও সে যাই
ফি বছরে
কষ্টগুলো যায় না কেন
এক্কেবারে ?


মিলি মুখার্জী


Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *