শকুন্তলা – সৌমিত বসু

অশিক্ষিত বনকন্যা

শকুন্তলার

যেটুকু সম্ভ্রম ছিল

আমাদের সাংস্কৃতিক

জগতের মানুষদের ভেতর

কেন সেটুকুও থাকবে না?

সত্যি সত্যি প্রতিষ্ঠানকে

কেউ যদি

সপাটে থাপ্পড় মেরে থাকে

সে আমাদের শকুন্তলা।

পরজন্মে যে

অহল্যা হ’য়ে জন্মেছে

কিংবা ইলা মিত্র

যাদের পায়ের ছাপ ধ’রে

মানুষ

কিছুদূর পর্যন্ত যায়

কিন্তু পৌঁছোনোর আগেই

হারিয়ে ফেলে পথ

সে ভুলে যায় ,সে শুধু

নিজের বঞ্চনার কথা

বলতে আসেনি

চিরকালীন অবজ্ঞার

স্রোত

জানাতে এসেছে একটা

খোলা মাঠে ,

উচ্ছিষ্টের মত দুটো রুটি

কিংবা একমুঠো

সম্মানের বিনিময়ে

যারা সমঝোতা করে

তাদের বিপ্রতীপে দাঁড়িয়ে

শকুন্তলা কিন্তু নাকচ

করে দিয়েছে

রানী হবার প্রস্তাব।

সারাটাজীবন কিছু না

পাওয়া

শকুন্তলা যা পারে

এতো পাওয়া বহুরূপীরা

কেন সেটুকুও পারে না?

তাই আজ শকুন্তলা

কোন মেয়ে নয়,

নয় পাটরানী,

প্রতিদিনের আকাশে

ভেসে বেড়ানো

একটি আগুনরঙা মেঘ

প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা যার

অঙ্গের ভূষণ।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *